১৯১১ তেও ওদের ভাগ চাই, বোঝো ঠ্যালা


সেই অ্যাডভারটাইজমেনট টা মনে পড়ে? "যো তেরা হ্যায় উও মেরা হ্যায়" পড়শি কেলাবের তারকাটা সমর্থকদের দাবী দাওয়ার মাত্রাটা মনে হচ্ছে সেই জায়গাতেই পৌঁছে গেছে নাহলে কোন ক্লাবের ১৯১১ সালে রচিত হওয়া রাজকীয় ইতিহাসের ভাগ চাইতেও লজ্জা বোধ করেনা ১৯২০ সালে জন্মানো একটা ক্লাবের সমর্থকগন। নিজের চোখকে বিশ্বাস করতে পারছেন না?  ভাবতে পারছেন না? ভাবার থেকেও জটিল এই অঙ্ককে অতি সুচারু ভাবে বাঙাল তকমায় জড়িয়ে কাজ হাসিল করবার নিম্ন রুচির প্রয়াস গোটা পৃথিবীর সমস্ত রাইভ্যাল ক্লাব গুলোর মধ্যে একমাত্র পাশের কেলাবের পক্ষেই সম্ভব।
হ্যাঁ ইস্টবেঙ্গল ফ্যান কেলাব রিয়েল পাওয়ারের দাবী আমাদের ১৯১১ র ইতিহাসের ভাগ ওদেরও দিতে হবে। ছোট বেলায় সবে বড় হতে শিখছি, এক  ঢ্যামনা বন্ধু ছিল, যখনি টাকা পয়সা দিয়ে কিছু কিনে খাবার সময় আসতো ওর মুখে একটাই বুলি ছিল "যা খাবি তার একটু ভাগ দিবি প্লিজ" - অনেকটা এরকম মনে হোল না কথাটা? মামার বাড়ী নাকি? আমাদের ইতিহাসের ভাগ চাস তোরা? সাহস তো কম নয়?
আজ পর্যন্ত কেউ কোনোদিন শুনেছে পাশের ক্লাবের কীর্তিকে কেউ জাতের দোহাই দিয়ে ভাগ চায়? তারকাটা পড়শিদের সুবাদে এটাও শুনতে হোল
তাও যখন দাবী তুলেছিস সেই দাবিকে তোবড়ানোটাও দরকার, তাহলে শোন লোটা বাবুরা
১৯০৫ সালের ১৬ই অক্টোবর ভারতের ভাইসরয় লর্ড কার্জন বঙ্গভঙ্গ প্রস্তাব দেন । কিন্তু ১৯১১ সালে, প্রচণ্ড গণআন্দোলনের ফলশ্রুতিতে বঙ্গভঙ্গ রহিত হয়। বঙ্গভঙ্গ হয় ১৯৪৭ সালে। এর ফলে পূর্ববঙ্গ পাকিস্তানে এবং পশ্চিমবঙ্গ ভারতে যুক্ত হয়। এই পূর্ববঙ্গই পরবর্তীকালে পাকিস্তানের কাছ থেকে এক রক্তক্ষয়ী বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধের মাধ্যমে ১৯৭১ সালে স্বাধীনতা লাভ করে ও বাংলাদেশ নামক একটি নতুন রাষ্ট্রের সৃষ্টি করে।
কিছু মূর্খ তারকাটা ইস্টবেঙ্গল সমর্থক মাঝে মাঝেই বলে ফেলে ৭ জন বাঙ্গাল  মিলে নাকি ১৯১১র অমর একাদশের হয়ে খেলেছে বলে আমরা ইস্ট ইয়র্কশায়ার কে হারাতে সক্ষম হই , তাদের কাছে একটাই প্রশ্ন বাঙাল কথাটাই তো এলো ১৯৪৭ সালে (কারন পূর্ববঙ্গের লোকজন নিজেদের বাঙাল বলতে পছন্দ করে আর পূর্ববঙ্গ তৈরি হয়েছে ১৯৪৭ সালে) তার আগে পর্যন্ত আমরা সবাই বাঙ্গালিই ছিলাম মানে মোহনবাগানী  ছিলাম , সুতরাং বাঙাল দের জন্য মোহনবাগান ইস্ট ইয়র্কশায়ার কে হারায় এই প্রসঙ্গ তুলে দয়া করে আসল সত্যকে বিভ্রান্ত কোরো না
দেখুন সেই অতি দুর্লভ ফটো এডিট এর আসল ঠিকানা যেখানে ইষ্টবেঙ্গল আমাদের গৌরব গাঁথা কেও দাবী করতে পিছুপা হয় না
Share on Google Plus

About Pradip Hazra

This is a short description in the author block about the author. You edit it by entering text in the "Biographical Info" field in the user admin panel.

0 comments :

Post a Comment