তাহলে কি সিএফএল এয়ারপোর্ট এ দেওয়া হবে?

ফেড কাপ জয়ীদের বরণ করতে মাত্র চার গাছা উপস্থিত এয়ারপোর্ট এ


চক্রান্তের ডার্বি খতম করে তিন পয়েন্ট আত্মস্থ করবার চেষ্টায় বুকে বারুদ ব্রিগেড, কলকাতা ঘুগ্নি-আলুরদম লিগে সাতে সাত হয়ার অপেক্ষায় মশাল বাহিনী, এমতাবস্থায় একখানি দাবী এসেছে পদ্মাপাড়ের কর্মকর্তাদের কাছে এবং কর্তারাও মনে মনে স্বীকার করতে বাধ্য হয়েছেন যে সমর্থককুলের দাবী নিতান্তই অন্যায্য নয় সুতরাং তাঁরা সমর্থকদের দাবিপত্র সি.সি. করে দিয়েছেন দলের স্বঘোষিত পৃষ্ঠপোষক আইএফএর কাছে

দাবিটি কি? দাবিটি হোল, গত দু বছর পর পর আই লীগ এবং ফেডারেশান কাপ জিতে মোহনবাগান সমর্থকগন আবেগের বিস্ফোরণ ঘটিয়ে যেভাবে এয়ারপোর্ট থেকে শোভাযাত্রা করে চ্যাম্পিয়ান দলকে কলকাতা কাঁপিয়ে বরন করে করেছে তাতে মোহন জনতার ইমেজ বিভিন্ন সোশ্যাল নেটওয়ার্কের দৌলতে সারা পৃথিবীর অগনিত বাঙালি ফুটবল প্রেমীর কাছে   এক দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে আর পড়শি কেলাবের গাত্রদাহে পরিনত হয়েছে। দল যে রকম পারফরমেন্স করছে তাতে অদুর ভবিষ্যতে মোহনবাগান জনতার মতো আবেগের বহিঃপ্রকাশ দেখানোর ইচ্ছাটির বাস্তব পরিনতি নিতান্তই অসম্ভব কারন মোহনবাগান ছাড়াও বেঙ্গালুরু এফসি, আইজল এফসি ও লাজং এফসি যেভাবে লিলুয়া দাশনগর পার হলেই পদ্মাপাড়ের দলটির প্যান্ট খুলে দিচ্ছে বারেবারে তাতে সর্বভারতীয় ক্ষেত্রে দলের সফল হবার চান্স কতো কম সেটা বোঝবার জন্য কোন ডিগ্রির দরকার পরে না।সুতরাং এই চান্স, যদি আইএফএ কর্তারা আমাদের এই দাবী মানেন তাহলে আমরাও ওদের টুকলি করে নতুন এক দৃষ্টান্ত সবাইকে দেখাতে পারি -  দাবিটি মুলত এটাই আর সম্প্রতি বিভিন্ন ফেসবুক পোষ্ট এও এই দাবী দেখা যাচ্ছে।

আমাদের বক্তব্য স্বপ্ন সবাই দেখতেই পারে, সে অধিকার সবারি আছে, কিন্তু স্বপ্নের কোন বাস্তব ভিত্তিতো থাকতে হবে, এর আগেও পড়শি কেলাব ফেডারেশান কাপ জিতেছিল তখন তাঁদের দলকে উদ্বুদ্ধ করতে কতজন গেছিলো, সেই চিত্র মাথায় রেখেও কি ওদের এয়ারপোর্ট থেকে ট্রফি দেবার সাহস আইএফএ নেবে?

Share on Google Plus

About Pradip Hazra

This is a short description in the author block about the author. You edit it by entering text in the "Biographical Info" field in the user admin panel.

0 comments :

Post a Comment