রাজ্যের নাম বদলাচ্ছে, এবার ইস্টবেঙ্গল ক্লাবের নাম বদলানো হোক



মহম্মদ আলির আসল নাম ছিল ক্যাসিয়াস ক্লে। সেই নাম তিনি বদলে ফেলেছিলেন। কারণ আমেরিকার দাস-মালিকরা তার পূর্বপুরুষদের ক্লে পদবী দিয়েছিলেন। আলি চাননি তাঁর নামে দাসত্বের চিহ্ন থাকুক।
কলকাতার বিবাদি বাগের আসল নাম ছিল ডালহৌসি স্কোয়ার। স্বাধীনতার পর সেই নাম বদলানো হয়। কারণ ডালহৌসি ছিলেন সাম্রাজ্যবাদী ইংরেজ। একইভাবে কার্জন পার্ক, ওয়েলিংটন স্কোয়ারের নামও বদলানো হয়েছে। এই নিয়ম মেনে, ইস্টবেঙ্গল ক্লাবটির নামও বদলানো উচিত।

লোটন ভায়ারা এই কথা শুনে খুব গালাগাল দেবেন। কিন্তু গালাগাল দেওয়ার আগে একবার Wikipedia খুলে দেখুন, East Bengal সার্চ করলে কী কী তথ্য পাওয়া যাচ্ছে। দেখা যাচ্ছে, মোট তিন রকমের ইস্টবেঙ্গল আছে। East Bengal FC, East Bengal Regiment, এবং East Bengal.
East Bengal FC-কে তো আমরা চিনি, international club of India. কিন্তু বাকি দুটি বস্তু কী কী? জেনে রাখুন, East Bengal Regiment হল বাংলাদেশের সেনাবাহিনীর সব থেকে বড় রেজিমেন্ট। আরও জেনে রাখুন এই East Bengal Regiment আসলে ছিল পাকিস্তানের সেনাবাহিনীর একটি রেজিমেন্ট। ১৯৬৫-র ভারত-পাক যুদ্ধে এই রেজিমেন্ট ভারতের সবথেকে বেশি ক্ষতি করেছিল। আপনারাই বলুন, বিদেশি সেনাবাহিনীর একটি রেজিমেন্টের নামে কি ভারতের একটি ক্লাবের নাম হওয়া উচিত?
এবার আসুন, East Bengal প্রসঙ্গে। আমরা জানি, বাংলাদেশের জন্ম হওয়ার আগে পাকিস্তানের দুটি অংশ ছিল। পশ্চিম পাকিস্তান এবং পূর্ব পাকিস্তান। কিন্তু Wikipedia জানাচ্ছে, ১৯৫৫ সালের আগে পূর্ব পাকিস্তান বলে কোনও জায়গা ছিল না। ওই এলাকার নাম ছিল ইস্টবেঙ্গল। পাকিস্তানের একটি রাজ্য ইস্টবেঙ্গল। ১৯৫৫ সালে ইস্টবেঙ্গলের নাম পালটে ইষ্ট পাকিস্তান রাখা হয়।
অর্থাৎ যাহা ইস্টবেঙ্গল তাহাই ইষ্ট পাকিস্তান। কী কাণ্ড ভাবুন, দেশভাগের পর ইস্টবেঙ্গল মানে ইষ্ট পাকিস্তান ভারতের বিরোধিতা করছে, ইস্টবেঙ্গল রেজিমেন্ট ভারতের সঙ্গে যুদ্ধ করছে, আর একদল লোক ভারতে বসে, “আমাগো ইস্টবেঙ্গল! আমাগো ইস্টবেঙ্গল!” বলে নাচানাচি করছে। ১৯৬৫ সালে যখন East Bengal Regiment ভারতের সঙ্গে লড়ছে, তখন এরা ইস্টবেঙ্গলকেই সমর্থন করেছে।
জানি, লোটন ভায়ারা বলবেন, তাঁদের ক্লাব তৈরি হয়েছে ১৯২০ সালে। তখন ইস্টবেঙ্গল ভারতের মধ্যেই ছিল। আরে ওই জন্যেই তো বলছি, এবার নামটা পালটে নে। ১৯২০ সালে যা হয়েছে হয়েছে। স্বাধীনতার পর যখন দেখা যাচ্ছে, ইস্টবেঙ্গল শব্দটার মধ্যে ভারত-বিরোধিতার গন্ধ আছে, তখন নামটা পালটানো হবে না কেন? ডালহৌসি, কার্জন পার্ক, ওয়েলিংটন প্রভৃতি নাম যদি পালটানো হয়, ইস্টবেঙ্গল পালটানো হবে না কেন?
তাছাড়া ১৯২০ সালেও নামকরণটা ভুলই ছিল। কলকাতার ক্লাব, তার নাম কখনও ইস্টবেঙ্গল হতে পারে? কলকাতা কি বেঙ্গলের ইস্টে? ইস্টবেঙ্গল নামের ক্লাব ঢাকায় কিংবা চট্টগ্রামে হওয়া বাঞ্ছনীয়, কলকাতায় নয়। তাই অবিলম্বে ক্লাবের নাম পালটে ফেলুন। ইস্টবেঙ্গল নামটা মিষ্টান্ন ভাণ্ডার, বেডিং স্টোর্স এসব জায়গাতেই মানায়।
Share on Google Plus

About Pradip Hazra

This is a short description in the author block about the author. You edit it by entering text in the "Biographical Info" field in the user admin panel.

0 comments :

Post a Comment